রাউজান নিউজ

রাউজানে ভোর থেকে জ্বলছে না গ্যাসের চুলা

মো. হাবিবুর রহমান, রাউজান নিউজ:

গ্যাসলাইনের ভেতরের বর্জ্য পরিষ্কার কার্যক্রম (পিগিং) কাজের জন্য রোববার ভোর থেকে রাউজানে ছিল না গ্যাস সরবরাহ। গ্যাসের চুলা না জ্বলায় চরম বেকায়দায় পড়েন গৃহবধুরা। কেউ কেউ মাটির চুলায় রান্নাবান্না করলেও অনেকেই ছিল রেস্তেরা নির্ভর। একাধিক ব্যক্তি জানিয়েছেন ভোর থেকে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় সকালে নাস্তা পর্যন্ত করতে পারেনি। তবে আজ রোববার দুপুর নাগাদ এ পরিস্থিতি চলবে বলে জানিয়েছেন কর্ণফুলী গ্যাস বিতরণ কোম্পানির (কেজিডিসিএল) কর্মকর্তারা। বিকেলের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে বলে জানিয়েছেন তারা।

গহিরা মাইজ পাড়া এলাকার বাসিন্দা রেজাউল করিম বলেন, ভোর থেকে গ্যাসের চুলা জ্বলছে না। দোকান থেকে চা-নাস্তা কিনে সকালের নাস্তা সেরেছি, দুপুরের খাবারও হয়তো কিনে খেতে হবে।

সাধারণত ৫/৬ বছর পর পর গ্যাসলাইনের ভেতরে জমা বর্জ্য পরিষ্কার বা পিগিং করতে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। জাতীয় গ্রিড থেকে চট্টগ্রাম পর্যন্ত মূল সরবরাহ লাইনের পাশাপাশি কিছু গুরুত্বপূর্ণ লাইনও পিগিংয়ের আওতায় পড়বে। কেজিডিসিএল কর্মকর্তারা বলেন, নানা প্রক্রিয়া শেষে পাইপলাইনের মাধ্যমে গ্যাস সরবরাহ করায় বর্জ্য থাকে কম। এর পরও বছরের পর বছর গ্যাস সরবরাহ করতে গিয়ে অতিসূক্ষ্ম আবর্জনার কণাগুলো গ্যাসলাইনের তলায় জমা হতে থাকে। এতে গ্যাসলাইনের আয়তন ভেতর থেকে সংকুচিত হয়ে যায়। গ্যাসের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে তাই একটি নির্দিষ্ট সময় পর পর স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে পাইপলাইন পরিষ্কার করতে হয়।

বিষয়টি অবশ্য আগে কয়েকটি সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রচার করে কেজিডিসিএল। তবে গ্রামের লোকেরা এ বিষয়টি জানেনা। কেউ কেউ বলছে এত বড় একটি সিদ্ধান্ত নিল গ্যাস কোম্পানি, এটা মাইকে অন্তত প্রচার করা দরকার ছিল। এতে নাগরিকরা বিকল্প হিসেবে সিলিন্ডার গ্যাস অথবা অন্য কোনো ব্যবস্থা নিয়ে রাখতে পারতেন।

 

এ বিষয়ে কর্ণফুলি গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড’র জরুরী অবস্থা নিয়ন্ত্রণ কক্ষে যোগাযোগ করা হলে কর্মকর্তারা জানান, রোববার দুপুর নাগাদ এ পরিস্থিতি চলবে,বিকেলের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। গ্যাসলাইনের ভেতরের বর্জ্য পরিষ্কার কার্যক্রম (পিগিং) কাজ দ্রুত শেষ করে গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে বলেও জানান তারা।

রাউজান নিউজ/এইচ.আর/হাবিব