রাউজান নিউজ

আধ্যাত্মিক সরাফতের প্রতিষ্ঠাতা হযরত মাওলানা শাহসূফী সৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারী

বিশেষ সংবাদদাতা ঃ

১০ মাঘ, তার ১১২ তম বার্ষিক ওরশ শরীফের প্রধান দিবস। এ উপলক্ষে ৩ দিন আগে থেকেই মাইজভান্ডার দরবার শরীফে শুরু হয়েছে নানান কর্মসূচি গ্রহন করে।

১১২ তম বার্ষিক ওরশে লাখো ভক্তের আগমনে মুখরিত ছিল মাইজভান্ডার দরবার শরীফ মোস্তাফা, গাউছুল আজম মাইজভান্ডারী, মাইজভান্ডারের প্রাণ পুরুষ ও মাইজভান্ডার দরবার শরীফের আধ্যাত্মিক সরাফতের প্রতিষ্ঠাতা হযরত মাওলানা শাহসূফী সৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারীর।
এদিকে এ ওরসে উপলক্ষে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে বিপুলসংখ্যক ভক্ত-জায়েরিনরা দরবার প্রাঙ্গণে সমবেত হয়েছেন।

বিভিন্ন ধর্ম-বর্ণের লাখো মানুষের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে ফটিকছড়ির মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফ। আশেক ভক্তের সালাত আদায়, মিলাদ, দরূদ ও কুরআন শরিফ পাঠ, আল্লাহ আল্লাহ জিকির, জিয়ারত ও ভান্ডারী গানে মুখরিত ছিল দরবার প্রাঙ্গণ।

ভক্ত-জায়েরিনদের ইবাদত-বন্দেগি ও যাতায়াত নির্বিনে করতে প্রশাসন থেকে নেয়া হয়েছিল বিশেষ নিরাপত্তাব্যবস্থা। মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) রাতে মিলাদ, আখেরি মুনাজাত এবং তাবারুক বিতরণের মাধ্যমে ওরসের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘটে ১১২ তম বার্ষিক ওরশের।

উল্লেখ্য, গাউছুল আজম হযরত সৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারী (ক.) ৭৯ বছর বয়সে ১৯০৬ খ্রীস্টাব্দ, ১৩১৩ বঙ্গাব্দে ১০ মাঘ সোমবার দিবাগত রাতে ইন্তেকাল করেন। প্রতি বছর ৮, ৯ ও ১০ মাঘ তার ওফাত দিবস উপলক্ষে ৩ দিনব্যাপী ওরস শরীফ অনুষ্ঠিত হয়।